Bharat Rice – এবার একেবারে সস্তায় মিলবে ‘ভারত চাল’! দাম কত? কোথায় পাবেন? জেনে নিন বিস্তারিত

বর্তমান যুগে যে হারে লাফিয়ে লাফিয়ে মুদ্রাস্ফীতির হার বাড়ছে, তাতে সাধারণ মানুষের অবস্থা বেহাল। বাজারে সকল জিনিসপত্রের পাশাপাশি বাড়ছে ভালো মানের চালের দাম। করোনা মহামারির সময় থেকে চরম অর্থনৈতিক সংকটের সাক্ষ্য হয়েছে বহু মানুষ। দেশবাসীর অন্ন নিশ্চিত করতে সেই সময় থেকেই বিনামূল্যে রেশন দেওয়া শুরু করে কেন্দ্র সরকার। আর এবার সরকার, দেশের মানুষের মুখে সস্তায় ভাল মানের চালের ভাত তুলে দিতে সাশ্রয়ী মূল্যে বাজারে এনেছে ‘ভারত চাল’ (Bharat Rice)।

Modi government has launched Bharat Rice

চালের আটা ও ছোলার ডালের আদলে এই চাল “Bharat Rice” নামে বিক্রি করা হবে। চালের ক্রমবর্ধমান দাম নিয়ন্ত্রণেই মুলিত এই পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার। এছাড়া সরকার চাল ব্যবসায়ীদের প্রতি শুক্রবার চালের মজুদ প্রকাশের নির্দেশনা দিয়েছে। ভর্তুকির সুবিধা সহ কম দামে চাল বিক্রি করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করল কেন্দ্র। সরকার ইতিমধ্যেই ভারত আটা প্রতি কেজি ২৭.৫০ টাকা এবং ভারত ডাল প্রতি কেজি ৬০ টাকায় বিক্রি করছে। কেন্দ্রীয় সরকার এবার এই চাল যাতে সকলে কিনতে পারে তার জন্য বড় ঘোষণা করেছে।

আরও পড়ুন »

জানা গেছে যে, কেজি প্রতি মাত্র ২৯ টাকা দামে মিলবে এই ‘ভারত চাল’ (Bharat Rice)। প্রায় সব দোকানেই এই চাল পাওয়া যাবে। যদিও এখনো পর্যন্ত সরকার শুধু মোবাইল ভ্যানের মাধ্যমে ‘ভারত চাল’ বিক্রি করে আসছে। এবার দেশের সর্বসাধারণের কাছে সস্তায় পৌঁছে দেওয়া হবে ‘ভারত চাল’। যারা চাল মজুত করে কালোবাজারি করবে, তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়ার পরিকল্পনা করছে কেন্দ্র সরকার। এক সাংবাদিক বৈঠকে কেন্দ্রীয় খাদ্য সচিব সঞ্জীব চোপড়া জানিয়েছেন যে, বিভিন্ন ধরনের চাল রফতানি নিষিদ্ধ থাকা সত্ত্বেও বিগত এক বছরে চালের খুচরো ও পাইকারি দাম প্রায় ১৫ শতাংশ বেড়েছে।

bharat rice launched by modi government
Bharat Rice

আরও পড়ুন » এ মাসেই অ্যাকাউন্টে ১০০ দিনের কাজের টাকা পাবেন, ভোটের আগে মাস্টারস্ট্রোক মমতার

তাই চালের দাম নিয়ন্ত্রণের জন্য কেন্দ্রীয় সরকার নিয়ন্ত্রণের জন্য  ন্যাশনাল এগ্রিকালচারাল কো-অপারেটিভ মার্কেটিং ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়া লিমিটেড (NAFED) এবং ন্যাশনাল কো-অপারেটিভ কনজ্যুমারস ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়া লিমিটেড (NCCF) নামক দুটি সমবায় কমিটির মাধ্যমে খুচরা বাজারে ‘ভারত চাল’ বিক্রি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এই চাল সকল ভোক্তাদের কাছে প্রতি কেজি ২৯ টাকা দরে বিক্রি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই ভর্তুকিযুক্ত চাল কেন্দ্রীয় ভান্ডারের খুচরা কেন্দ্রগুলির পাশাপাশি ফ্লিপকার্ট এবং অ্যামাজনের মতো ই-কমার্স প্ল্যাটফর্মগুলিতে পাওয়া যাবে। 

আরও পড়ুন » মোদী সরকারের এই স্কিমটি কি জানেন? কৃষকদের জন্য দুর্দান্ত স্কিম, অনেকেই জানেন না

ভারত চাল ৫ কেজি এবং ১০ কেজির প্যাকেটে বাজারে পাওয়া যাবে। প্রথম ধাপে খুচরা বাজারে বিক্রির জন্য ৫ লক্ষ টন চাল বরাদ্দ করা হয়েছে সরকারের তরফ থেকে। এমনকি তিনি চাল রফতানির ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার বিষয়ে বলেন যে, শীঘ্রই যেকোনো সময় চাল রফতানির ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার কোনো পরিকল্পনা সরকারের নেই। দাম কমার আগে পর্যন্ত নিষেধাজ্ঞা অব্যাহত থাকবে।

🔔 বিভিন্ন ধরনের সরকারি প্রকল্প, চাকরি, শিক্ষা ও স্কলারশিপ সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ আপডেট মিস করতে না চাইলে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপটেলিগ্রাম গ্রুপে যুক্ত হোন –

Leave a Comment

JoinJoin