Blue Aadhaar Card – এবার পাবেন ব্লু আধার কার্ড! কারা পাবেন এই নয়া আধার কার্ড? আগের আধার কি বাতিল হবে? জানুন বিস্তারিত

আধার কার্ড হলো প্রত্যেক ভারতীয় নাগরিকের একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ নথি। প্রায় সকল সরকারি কাজে এই নথিটি প্রয়োজনীয়। এই আধার কার্ডেই এবার হলো একটি নতুন সংযোজন। প্রতিটি আধার কার্ডে একটি ১২ সংখ্যার আধার নম্বর বা UID নম্বর থাকে। এবার যোগাযোগের বিবরণ, ঠিকানা এবং অন্যায় ব্যক্তিগত তথ্য সাজিয়ে রাখার জন্য চালু হলো নীল রঙের আধার কার্ড, যা কিনা ব্লু আধার কার্ড (Blue Aadhaar Card) নামেও পরিচিত।

এই ব্লু আধার কার্ড (Blue Aadhaar Card) নতুন ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট, প্যান কার্ড, পাসপোর্ট ও অন্যান্য জরুরি প্রশাসনিক কাজের ক্ষেত্রে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ঠিকানা প্রমাণগুলির মধ্যে একটি। এখন প্রশ্ন হলো তবে কি এবার পুরনো সাদা রঙের আধার কার্ড বাতিল হতে চলেছে? আসলে সদ্যোজাত কিংবা ৫ বছরের কম বয়সী শিশুদের জন্য আগে আধার কার্ডের সুবিধা উপলব্ধ ছিল না। UIDAI অর্থাৎ ইউনিক আইডেন্টিফিকেশন অথরিটি অফ ইন্ডিয়ার তরফ থেকে ২০১৮ সালে শিশুদের জন্যেও আধার কার্ড চালু করা হয়।

আরও পড়ুন »

Blue Aadhaar Card Apply Process

এই আধার কার্ডের রঙ নীল। তাই এটি ব্লু আধার কার্ড (Blue Aadhaar Card) নামেও পরিচিত। প্রাপ্তবয়স্কদের আধার কার্ড থেকে ব্লু আধার কার্ড খানিকটা আলাদা। এই আধার কার্ড তৈরির সময় শিশুর আঙুলের ছাপ কিংবা আইরিস স্ক্যান করতে হয় না, বরং মা কিংবা বাবার মধ্যে যেকোনো একজনেরbআধার কার্ড এবং শিশুর বার্থ সার্টিফিকেট অর্থাৎ জন্ম শংসাপত্র প্রয়োজন হয়। এই ব্লু আধার কার্ডেও ১২ সংখ্যার আধার নম্বর থাকে, তবে সন্তানের পাঁচ বছর হয়ে গেলে ওই শিশুর ছবি, আঙুলের ছাপ ও আইরিস স্ক্যান করিয়ে তা কার্ডে আপডেট করতে হয়, নাহলে সেই কার্ড অবৈধ হয়ে যায়।

Blue Aadhaar card apply process
Blue Aadhaar card

আরও পড়ুন » Aadhaar Card Lock – আধার কার্ড লক করলেই কি নিশ্চিন্ত? ব‍্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট, ডেটার নাগাল পাবে কি জালিয়াতরা? কি বলছে সরকার, দেখুন

শিশুদের জন্য তৈরি এই ব্লু আধার কার্ডের মেয়াদ পাঁচ বছর, তবে অভিভাবকেরা চাইলে নির্দেশিকা মেনে এই কার্ডের মেয়াদ বাড়াতে পারেন। আর এই মেয়াদ বৃদ্ধির ফলে শিশুর পাঁচ বছর হয়ে যাওয়ার পরেও এই আধার কার্ড বৈধ থাকবে এবং এই আধার কার্ডে শিশুর বিবরণ আপডেট করার জন্য সরকার বিনামূল্যে সুবিধা দেয়।

Blue Aadhaar Card আবেদনের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস

এই ব্লু আধার কার্ডের জন্য আবেদন করতে বেশ কিছু নথি প্রয়োজন। অভিভাবকদের নথিভুক্তকরণ কেন্দ্রে নির্দিষ্ট নথিপত্র নিয়ে যেতে হবে। এর জন্য জেরক্স কপি এবং অরিজিনাল দুই-ই লাগবে।

  • যে শিশুর আধার কার্ড তৈরি করা হবে, তার মা ও বাবাকে সেখানে উপস্থিত থাকতে হবে।
  • শিশুর জন্মশংসাপত্র।
  • শিশুর অভিভাবকদের পরিচয় এবং ঠিকানার প্রমাণ, যেমন আধার কার্ড, রেশন কার্ড, ভোটার আইডি কার্ড।
  • এছাড়া লাগবে শিশুর একটি সাম্প্রতিক ছবি এবং যদি সেই শিশুটি স্কুলে পড়ে, তবে তার স্কুলের আইডি।

আরও পড়ুন » এবার কেন্দ্র সরকার সকল পড়ুয়াদের প্রতি মাসে দেবে ৩০০০ টাকা স্কলারশিপ! জেনে নিন আবেদন পদ্ধতি

কিভাবে Blue Aadhaar Card আবেদন করবেন?

  • এই আধার কার্ডের জন্য আবেদন করতে ইচ্ছুক ব্যক্তিকে প্রথমে অফিশিয়াল ওয়েবসাইট https://uidai.gov.in ওয়েবসাইটে গিয়ে তালিকা দেখে নিকটবর্তী একটি আধার তালিকাভুক্তি কেন্দ্রে যেতে হবে।
  • উপরিউক্ত গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্রগুলি সঙ্গে রাখতে হবে। আধার তালিকাভুক্তি ফর্ম ফিল আপ করতে হবে।
  • এমনিতে চাইলে UIDAI ওয়েবসাইট থেকে আগেও ফর্মটি ডাউনলোড করে নেওয়া যেতে পারে।
  • এরপর আধার তালিকাভুক্তি কেন্দ্রের তালিকাভুক্তি অপারেটর শিশুর একটি ছবি তুলবেন এবং এরপর ওই ফিল আপ করা ফর্ম এবং প্রয়োজনীয় নথিপত্রগুলি তার কাছে জমা দিতে হবে।
  • সবকিছু হয়ে যাওয়ার পর একটি EID সহ একটি স্বীকৃতি স্লিপ দেওয়া হবে। এই EID ব্যবহার করে আপনি আপনার সন্তানের ব্লু আধার কার্ডের আবেদন অনলাইনে ট্র্যাক করতে পারেন।

🔔 বিভিন্ন ধরনের সরকারি প্রকল্প, চাকরি, শিক্ষা ও স্কলারশিপ সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ আপডেট মিস করতে না চাইলে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপটেলিগ্রাম গ্রুপে যুক্ত হোন –

Leave a Comment

JoinJoin