কেন্দ্র সরকারের বড় সিদ্ধান্ত! শেষ হতে চলেছে গুগল পে, ফোন পের দিন! বাজারে দাপট সেখানে টাটা! জানুন বিস্তারিত

বর্তমানে কেনাকাটা থেকে শুরু করে বিভিন্ন ধরনের বিল পেমেন্ট প্রভৃতি লেনদেনের ক্ষেত্রে দেশের সকল মানুষ ইউপিআই অর্থাৎ ইউনিয়াড পেমেন্টস ইন্টারফেসের উপর নির্ভরশীল। গুগল পে, ফোন পে বা পেটিএমের মতো একাধিক মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে এই পরিষেবা ব্যবহার করা যায়। তবে, আরবিআই অর্থাৎ রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া, চলতি বছরের ৩১শে জানুয়ারি নিয়ম ভাঙার অভিযোগ ওঠায় পেটিএমের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে। 

ভারতীয় ফিনটেক কোম্পানীর মাথার উপর এহেন শাস্তির খাঁড়া নামতেই দ্রুত গতিতে গুগল পে, ফোন পে বাজার দখল করতে শুরু করে। এরপর হু হু করে তাদের মার্কেট শেয়ারকরে বাড়তে থাকে। কেন্দ্র সরকার ২০১৬ সালে দেশ জুড়ে এই ইউপিআই পরিষেবা চালু করেছিল। বর্তমানে ৫০০টি ব্যাঙ্ক এই পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত। এমনকি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, এই ইউপিআইকে দেশের গণ্ডি পেরিয়ে বিদেশেও  নিয়ে গেছেন। ফ্রান্স, সংযুক্ত আরব আমিরশাহী, শ্রীলঙ্কা, মরিশাস, কাতার, ওমান, সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়ার মতো বেশ কয়েকটি দেশে ভারত এই ব্যবস্থা চালু করেছে। 

❖  Related Articles

বর্তমানে কেন্দ্র সরকার দুই মার্কিন ফিনটেক কোম্পানীর রমরমা বন্ধ করতে উদ্যোগী হয়েছে। সূত্রের খবর, দেশীয় সংস্থাকে ইউপিআইয়ের মার্কেটে সুবিধা পাইয়ে দিতে কেন্দ্র এক বড় পদক্ষেপ গ্রহণ করতে পারে। বর্তমানে এদেশের ইউপিআইয়ের বাজারের ৮০ শতাংশই দখল করে রেখেছে এই দুই মার্কিন ফিনটেক কোম্পানী যথাক্রমে গুগল পে, ফোন পে। এর ফলে গুগল পে, ফোন পের ওপর বাড়তি নজরদারি শুরু করেছে কেন্দ্র। সূত্রের খবর, সরকার চাইছে না যে, ইউপিআইয়ের বাজার শুধুমাত্র দুইটি মার্কিন সংস্থার দখলে থাক। 

এহেন পরিস্থিতিতে, ইউপিআইয়ের উপর আমেরিকার সংস্থাগুলির প্রভাব কমাতে সরকার নয়া পরিকল্পনা করছে। সূত্রের খবর, সরকার বিদেশি ফিনটেকের ইউপিআই লেনদেন ৩০ শতাংশে নামিয়ে আনার পরিকল্পনা করছে। এদেশে ইউপিআইয়ের মাধ্যমে প্রতি মাসে ১০ বিলিয়নের বেশি টাকার লেনদেন হয়। এর সিংহভাগই গুগল পে এবং ফোন পের মাধ্যমে হয়ে থাকে। তবে এবার সরকার বিদেশি ফিনটেকের ইউপিআই লেনদেন ৩০ শতাংশে নামিয়ে আনার ফলে স্বভাবতই মাথায় হাত পড়েছে এই দুই ফিনটেক কোম্পানীর। 

আরও পড়ুন » ভুল অ্যাকাউন্টে ইউপিআই পেমেন্ট করে ফেলেছেন? কীভাবে টাকা ফেরত পাবেন? জানুন

উক্ত বিষয়টি নিয়ে সংসদীয় কমিটি ইতিমধ্যেই কেন্দ্রের কাছে পদক্ষেপের জন্য সুপারিশ করেছে, যেখানে দেশীয় ফিনটেক কোম্পানীকে আরও বেশি গুরুত্ব দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। আর এই আবহে এবার ইউপিআইয়ের দুনিয়ায় পা রাখতে চলেছে টাটা গোষ্ঠী। কিছুদিনের মধ্যেই টাটা গোষ্ঠী তাদের টাটা পে নামক পরিষেবা চালু করবে, যা দুই মার্কিন ফিনটেক কোম্পানীকে ব্যাপক টক্কর দেবে বলেই মনে করা হচ্ছে।

🔔 বিভিন্ন ধরনের সরকারি প্রকল্প, চাকরি, শিক্ষা ও স্কলারশিপ সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ আপডেট মিস করতে না চাইলে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপটেলিগ্রাম গ্রুপে যুক্ত হোন –

Leave a Comment

Join Join