Starlink – এবার জোরদার টক্কর দিতে মাঠে নামলো স্টারলিঙ্ক! মাথায় হাত Jio Airtel এর

রিলায়েন্স জিওর একটা আলাদাই দাপট রয়েছে ভারতীয় টেলিকম বাজারে। দীর্ঘদিন ধরে Jio-র সঙ্গে পাল্লা দিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে আসছে Airtel, Vodafone-Idea (VI) সহ আরো টেলিকম সংস্থাগুলি। এবার সেই তালিকায় নাম লেখাতে চলেছে এলন মাস্কের সংস্থা স্টারলিঙ্ক (Starlink)। এবার মহাকাশ থেকে তারহীন সংযোগের মাধ্যমে প্রত্যেকের বাড়ি বাড়ি পৌঁছে যাবে ইন্টারনেট। ইতিমধ্যেই এই পরিষেবা ভারত ছাড়া একাধিক দেশে এলন মাস্কের সংস্থা স্টারলিঙ্ক স্যাটেলাইট ইন্টারনেট (Starlink Satellite Internet) পরিষেবা চালু করলেও ভারতে এখনও এর অনুমোদন পায়নি, তবে এবার অপেক্ষার অবসান।

Elon Musk Starlink Satellite Internet

আসলে ভারতে ইন্টারনেট পরিষেবা শুরু করার জন্য যেকোনো বিদেশী সংস্থাকে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রকের কাছ থেকে অনুমতি নিতে হয়। এলন মাস্ককে, ডিপার্টমেন্ট অফ টেলিকমিউনিকেশন বিভাগ ছাড়াও টেলিকম মন্ত্রক এবং ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল স্পেস প্রমোশন অ্যান্ড অথোরাইজেশন সেন্টারের থেকে ছাড়পত্র পেতে হবে সংস্থাকে, তবে আর্থ স্টেশন সেটআপ করতে পারবে স্টারলিঙ্ক (Starlink)। আর  তবেই ভারতের সর্বত্র পৌঁছতে পারবে স্টারলিঙ্ক ইন্টারনেট পরিষেবা। স্টারলিঙ্ক, ২০২২ সালে গ্লোবাল মোবাইল পার্সোনাল কমিউনিকেশন – স্যাটেলাইট সার্ভিসেস লাইসেন্স পায়।

Elon Musk Starlink Satellite Internet
Elon Musk Starlink Satellite Internet
আরও পড়ুন »

জিও, ওয়ানওয়েবের পর তৃতীয় সংস্থা হিসাবে অনুমোদন পায় তারা। জানা গেছে যে, ভারতে লাইসেন্স পাওয়ার দৌড়ে শেষমেশ অনেকটা এগিয়ে গেছেন এলন মাস্ক। এলন মাস্ক, চলতি বছরের জানুয়ারির শেষ অথবা ফেব্রুয়ারির শুরুর দিকেই ভারতে মহাকাশ ভিত্তিক ইন্টারনেট পরিষেবার লাইসেন্স পেতে পারেন। এর ফলে এখন মুকেশ আম্বানির জন্য এটা একটা বড় চ্যালেঞ্জ, কারণ তারাও সম্প্রতি জিও স্পেস ফাইবারের সূচনা করেছে, যেখানে মহাকাশ থেকে গ্রাহকদের বাড়ি বাড়ি পৌঁছবে ইন্টারনেট। রিলায়েন্স জিও, ইন্টারনেট পরিষেবার ক্ষেত্রে ভারতে একটি নতুন যুগের সূচনা করেছে।

সস্তায় গ্রাহকদের ডেটা প্যাক রিচার্জ-এর সুবিধা দেওয়ার ফলে এই সংস্থার গ্রাহক সংখ্যা বর্তমানে সবথেকে বেশি। এমনকি এই সংস্থার সঙ্গে লড়াই করে হেরে যাচ্ছে একাধিক টেলিকম সংস্থা। এবার এই জনপ্রিয় সংস্থাকে টেক্কা দিতে আসছে এলন মাস্কের স্টারলিঙ্ক। ইতিমধ্যেই রিলায়েন্স জিওর পাশাপাশি এয়ারটেলের ওয়ানওয়েভ দুই সংস্থা লাইসেন্স পেয়ে গেছে। স্যাটেলাইট ভিত্তিক ইন্টারনেট পরিষেবা দেওয়ার দৌড়ে সকলেই জোর কদমে প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে, তবে ভারতে যেহেতু এখনো স্টারলিঙ্ক অনুমতি পায়নি তাই জিও এবং এয়ারটেল ওপর গ্রাহকদের ভরসা করতে হবে।

অবশ্যই পড়ুন » PayTm গ্রাহকদের মাথায় হাত! এই তারিখ থেকে বন্ধ হচ্ছে পেটিএমের সমস্ত পরিষেবা! নির্দেশ জারি রিজার্ভ ব্যাঙ্কের

বিশ্বের সাতটি দেশে ইতিমধ্যেই পরিষেবা চালু করে দিয়েছে এলন মাস্কের Starlink সংস্থা। এই সংস্থা ভারতে প্রবেশ করার ক্ষেত্রে শুধু অপেক্ষা কেন্দ্র সরকারের অনুমোদনের। রিপোর্ট অনুযায়ী, ভারতে, স্টারলিঙ্কের স্পিড ৫ Mbps থেকে ২২০ Mbps -এর মধ্যে থাকতে পারে। নেটের গতি গড়ে থাকবে ১০০ Mbps এর উপরেই।

আরও পড়ুন » এবার Netflix আর Hotstar এ সিনেমা থেকে খেলা দেখুন একেবারে বিনামূল্যে! বিশদ জানুন এক নজরে

বিশেষজ্ঞদের মতে, ভারতে এই পরিষেবা ব্যয়বহুল হতে পারে, কারণ স্টারলিঙ্ক একাধিক কর দিয়ে ইন্টারনেট পরিষেবা আরম্ভ করবে। সাধারণ গ্রাহকদের ইকুইপমেন্ট খরচ ৩৭,৪০০ টাকা এবং পরিষেবার জন্য ৭,৪২৫ টাকা চার্জ করতে পারে। যদিও এই ব্যাপারে স্টারলিঙ্ক নিশ্চিত ভাবে কিছু জানায়নি, তবে লাইসেন্স পাওয়ার পর খরচ ও প্ল্যান সংক্রান্ত তথ্য ঘোষণা করতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

🔔 বিভিন্ন ধরনের সরকারি প্রকল্প, চাকরি, শিক্ষা ও স্কলারশিপ সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ আপডেট মিস করতে না চাইলে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপটেলিগ্রাম গ্রুপে যুক্ত হোন –

Leave a Comment

JoinJoin