Aadhaar Card – আপনার আধার কার্ড যেকোনো মুহূর্তেই হতে পারে নিষ্ক্রিয়! এই ভুলগুলি করলেই পড়বেন বিপাকে! জানুন বিস্তারিত

এখন বাংলাজুড়ে তোলপাড় কাণ্ড। একাধিক জায়গা থেকে শোনা যাচ্ছে আধার কার্ড (Aadhaar Card) বাতিলের খবর। দেশের নাগরিকদের জন্য অধিকাংশ ক্ষেত্রে আধার কার্ড বাধ্যতামূলক। তবে, আচমকাই শোনা যাচ্ছে, অনেকের কাছেই এই আধার কার্ড রাতারাতি বাতিল হওয়ার চিঠি এসে পৌঁছচ্ছে। তাই গোটা দেশে জুড়ে পরে গেছে শোরগোল। ইতিমধ্যেই এই নিয়ে তীব্র অসন্তোষ প্রকাশ করে বিকল্প কার্ডের কথা বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর বিস্ফোরক অভিযোগ এই যে, বাংলার মানুষকে প্রকল্পের সুবিধা থেকে বঞ্চিত করার জন্য আধার কার্ড বাতিল (Aadhaar Card Deactivate) করা হচ্ছে।

যদিও কেন্দ্রের তরফ থেকে নাগরিকদের আশ্বস্ত করে জানানো হয়েছে যে, আধার কার্ড বাতিল হচ্ছে না। তবে, সত্যিই যদি আপনার কাছেও আসে আধার কার্ড বাতিলের চিঠি, তখন কী করবেন? কেন আসতে পারে এমন চিঠি? এর নেপথ্যে কী কারণ? কী করে ফের আবার তা ‘অ্যাকটিভেট’ করবেন? চিন্তার কোনো কারণ নেই। UIDAI এর কিছু সহজ নিয়ম মেনে চললেই আপনি এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন। আসুন তবে জেনে নেওয়া যাক।

❖  Related Articles

কী কী কারণে Aadhaar Card Deactivate হতে পারে?

এই ১২ ডিজিটের আধার কার্ড (Aadhaar Card) নম্বরটি হলো দেশের যে কোনো নাগরিকের জন্য সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ KYC নথি। মোবাইল কানেকশন থেকে শুরু করে ব্যাঙ্কের যাবতীয় পরিষেবার ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় এই আধার কার্ড। তাই এই আধার কার্ড অ্যাক্টিভেট থাকা বাধ্যতামূলক। বর্তমানে অভিযোগ উঠেছে যে, ৮.১ মিলিয়ন আধার কার্ড ইতিমধ্যেই UIDAI বাতিল করে দিয়েছে। আধার কার্ড বাতিল হতে পারে যেকোনো মুহূর্তে। এর পিছনে রয়েছে কিছু কারণ। তিন বছর ধরে লাগাতার আধার কার্ড ব্যবহৃত না হলে তা বাতিল হতে পারে। UIDAI-এর নিয়মে এমনটাই বলা হয়েছে।

ডিঅ্যাক্টিভেট (Deactivate) হওয়ার অর্থ ক্যানসেল বা বাতিল হওয়া নয়। আপনার আধার কার্ড যেকোনো পরিস্থিতিতে ডিঅ্যাক্টিভেট হয়ে যেতে পারে। নাম-পরিচয়, ঠিকানায় গরমিল, বায়োমেট্রিক ম্যাচ না হলে আধার কার্ড ডিঅ্যাক্টিভেট হতে পারে। এর ফলে কোনো আধার কার্ড যদি EPFO-তে আধারের বিস্তারিত তথ্য না দেওয়া থাকলেও ডিঅ্যাক্টিভেট হয়ে যেতে পারে কার্ডটি। ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট কিংবা প্যান কার্ডের সঙ্গে লিংক না থাকে সেক্ষেত্রেও তা ডিঅ্যাক্টিভেট হয়ে থাকতে পারে। ১৫ বছরের কম বয়সী কোনো শিশুর আধার কার্ড তার ১৫ বছর হওয়ার পর UIDAI নিয়ম অনুযায়ী আপডেট না করা হলেও তা ডিঅ্যাক্টিভেট হতে পারে।

আরও পড়ুন » Job Card Download – নিজের জব কার্ড ডাউনলোড করুন মাত্র ২ মিনিটেই, জেনে নিন প্রসেস

কীভাবে আধার কার্ড অ্যাক্টিভ আছে কিনা জানবেন কীভাবে?

আধার কার্ড চেক (Aadhaar Card Check) করার জন্য পাঁচটি ধাপ ফলো করতে হবে।

  • প্রথমে UIDAI এর মাই আধার পোর্টাল myaadhaar.uidai.gov.in -এ যেতে হবে।
  • এরপর Check Aadhaar Validity -তে  ক্লিক করে ১২ সংখ্যার আধার কার্ড নম্বর লিখে ক্যাপচা কোড পূরণ করে Proceed এ ক্লিক করতে হবে।
  • এরপর স্ক্রিনে আপনার আধার কার্ডের স্টেটাস দেখতে পাবেন।
  • আপনার কার্ড ভ্যালিড থাকলে নিচের ছবিটির মতো দেখাবে।
Aadhaar Card Validity Check Process
Aadhaar Card Validity Check

আধার কার্ড ডিঅ্যাক্টিভেট হয়ে থাকলে কীভাবে পুনরায় অ্যাক্টিভেট করবেন?

আধার কার্ড অ্যাপডেট করতে বায়োমেট্রিক তথ্য পুনরায় ভেরিফিকেশন করতে হবে। নাম, ঠিকানা, জন্মতারিখ সঠিকভাবে আপডেট করিয়ে নিলেই ডিঅ্যাক্টিভেট হওয়া কার্ড পুনরায় অ্যাক্টিভেট হয়ে যাবে। আপনি চাইলে নিকটবর্তী আধার সেবা কেন্দ্রে গিয়েও তা আপডেট করে নিতে পারেন।

আরও পড়ুন » PAN Card Rules – এই ধরণের প্যান কার্ড থাকলে গুনতে হবে জরিমানা। কড়া নির্দেশ দিল আয়কর বিভাগ

🔔 বিভিন্ন ধরনের সরকারি প্রকল্প, চাকরি, শিক্ষা ও স্কলারশিপ সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ আপডেট মিস করতে না চাইলে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপটেলিগ্রাম গ্রুপে যুক্ত হোন –

Leave a Comment

Join Join