Aadhaar Deactivated issue – আপনিও পেয়েছেন আধার নিষ্ক্রিয়তার চিঠি? কি করবেন এবার? কিভাবে হবে সমাধান? জেনে নিন

Aadhaar Deactivated issue: ভারতীয় নাগরিকদের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্ট হল আধার কার্ড (Aadhaar Card)। জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত আধার কার্ড প্রত্যেক ভারতীয়র সঙ্গী। তাই আধার কার্ড সম্পর্কিত কোনো সমস্যা হলে তা তৎক্ষনাৎ সংশোধন করা প্রয়োজন। ইতিমধ্যে বাংলার বিভিন্ন জেলার বাসিন্দারা আধার কার্ডের নতুন সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন।

সম্প্রতি বহু মানুষ ডাকযোগে একটি চিঠি পাচ্ছেন যেখানে তাঁদের  আধার কার্ড নিষ্ক্রিয়তার কথা উল্লেখ রয়েছে। যার দরুণ হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে বহু বঙ্গবাসীকে। বর্তমানে আধার কার্ডের সঙ্গে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট, রেশন কার্ড, ফোন লিঙ্কড করা থাকে। আধারের অসুবিধার ফলে ব্যাঙ্কিং পরিষেবা ও রেশনের ক্ষেত্রে বিশেষ অসুবিধার মুখোমুখি হতে হচ্ছে তাঁদের। এহেন সমস্যার কারণ কী? তাছাড়া সমস্যা থেকে মুক্তির উপায়ই বা কী? প্রশ্ন তুলছেন জনসাধারণ। 

❖  Related Articles

Aadhaar Deactivated issue

ইতোমধ্যে বাংলার বহু জেলার অধিবাসী ডাকযোগ মারফত চিঠি পেয়েছেন। যেখানে বলা হচ্ছে, উক্ত নাগরিকদের আধার কার্ড নিষ্ক্রিয় (Aadhaar Deactivated issue) হয়েছে। আর আধার নিষ্ক্রিয় হওয়া মানেই অন্যান্য পরিষেবা পাওয়ার পথে গুরুতর সমস্যা। তাই সংশ্লিষ্ট বিষয়টি নিয়ে আতঙ্কের বাতাবরণ সৃষ্টি হয়েছে আমজনতার মধ্যে। আধার কার্ড নিষ্ক্রিয়তার বার্তা পেলে অতি সত্বর কিছু পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজনীয়। আজকে আপনাদের বলবো ডাকযোগে আধার নিষ্ক্রিয়তার চিঠি পেলে ঠিক কী করণীয় আপনাদের।

সম্প্রতি বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। বিষয়টির একটি রাজনৈতিক অভিসন্ধি বলে উল্লেখ করেন তিনি। তিনি সরাসরি বলেন, “আবার এনআরসি করার চক্রান্ত করছে।” তাছাড়া সামনে লোকসভা ভোট হওয়ায় নির্বাচন প্রসঙ্গকেও হাতিয়ার করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। আধার কার্ড নিষ্ক্রিয়তার সমাধানসূত্র কী? এ বিষয়ে মমতা বন্দোপাধ্যায় বলেন, মুখ্যসচিবকে দিয়ে একটি অনলাইন পোর্টাল চালু করতে হবে। যাঁদের আধার কার্ড নিষ্ক্রিয় করা হচ্ছে, তাঁরা সঙ্গে সঙ্গে জানাবেন। সমাধানে বিকল্প কি করা যায় তা রাজ্য সরকার দেখবে।

সূত্রের খবর, রবিবার বীরভূমের সভা মঞ্চ থেকে এমনটাই ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। অনলাইন পোর্টালটির ব্যাপারে তিনি মুখ্যসচিব বিপি গোপালিককে নির্দেশ দিয়েছেন বলে খবর। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে অতি দ্রুত যাতে পদক্ষেপ নেওয়া যায়, তার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এর পাশাপাশি, মুখ্যমন্ত্রী এও বলেন যে সমস্ত নাগরিকদের আধার কার্ড নিষ্ক্রিয় হচ্ছে তাঁদের লক্ষ্মীর ভাণ্ডার ও ফ্রি রেশন পরিষেবা বন্ধ করবে না রাজ্য।

আরও পড়ুন » নতুন ভোটার লিস্ট ২০২৪ প্রকাশিত হলো, ডাউনলোড করুন এইভাবে

আধার কার্ড নিষ্ক্রিয়তার চিঠিতে লেখা হয়েছে, আধার আইনের ২৮ এ (28A) ধারায় এই কার্ড নিষ্ক্রিয় হচ্ছে। অর্থাৎ সংশ্লিষ্ট আধার কার্ডকারীর ঠিকানা বা নাগরিকত্ব নিয়ে সংশয় থাকায় আধার কার্ড নিষ্ক্রিয় করা হচ্ছে। রাজ্য সরকারের তরফে ঘোষিত হওয়া নতুন পোর্টালটি কাজ যেহেতু  চলছে, এটি এখনও চালু হয়নি, তাই অতি সত্বর ব্যবস্থা হিসেবে কি করা উচিত নাগরিকদের? রিপোর্ট বলছে, আধার নিষ্ক্রিয়তার চিঠি পেলে UIDAI-এর  টোল ফ্রি নম্বরে ফোন করতে হবে নাগরিকদের। টোল ফ্রি নম্বরটি হল 1947 (১৯৪৭)। ভুক্তভোগীরা উল্লিখিত টোল ফ্রি নম্বরে ফোন করে নিজেদের সমস্যার কথা জানাতে পারেন। অথবা আধার কেন্দ্রে গিয়ে আধারের তথ্য আপডেট করে নিতে পারেন। জানা যাচ্ছে, এতে উপকৃত হবেন ভুক্তভোগীরা।

🔔 বিভিন্ন ধরনের সরকারি প্রকল্প, চাকরি, শিক্ষা ও স্কলারশিপ সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ আপডেট মিস করতে না চাইলে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপটেলিগ্রাম গ্রুপে যুক্ত হোন –

Leave a Comment

Join Join